অমরত্ব কি?

মানুষের ওটাই goal ( লক্ষ্য ) । কত মানুষ মরেছে, এখনও মরছে,
তবুও মানুষ অমরত্ব বলে চিৎকার করতে ছাড়েনি। আমরা হিন্দুরা জন্মান্তর মানি। আমি যে এই জন্মেই নিঃশেষ হলে গেলাম তা নয়কো। এরও পর আছে। আবার জন্মাব,
জন্মায়ে আবার proceed করব ( এগিয়ে যাব )। জন্মান্তরেও যদি আমার স্মৃতিবাহী। চেতনা intact ( অব্যাহত ) থাকে, তাহলে অমরত্ব লাভ হল। মরে গেলেও যদি পূর্বজন্মের স্মৃতি পরজন্মে continue করে ( সচল থাকে ) তখন পূর্বের সবই চেনা সম্ভব।
হয়। আমি হয়তাে আগের জন্মে কলকাতায় ছিলাম, পরের বারে লন্ডনে জন্ম হলেও স্মৃতিবাহী চেতনা অক্ষুন্ন থাকলে আমি কলকাতার লােকদের চিনতে পারব। চেতনা নষ্ট হয় না। কবিরাজরা সে চেষ্টা করেছেন। অনেক কবিরাজী বইয়ের মধ্যে জরামৃত্যুরােধক অনেক জিনিষের কথা দেখা যায়। তার মানে, এই রবটা যে চলেছে তা বােঝা যায়। আৰ্যদের একটা সব সময়কার চেষ্টা ছিল জরা-মরণ রােধ করে অমৃতকে উপভােগ করার। এটাকে achieve করার ( পাওয়ার ) জন্য ওরা একেবারে determind ( স্থিরসঙ্কল্প ) ছিল।

Leave a Reply